এস ভি এফ কর্তাকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিলেন আদালত।

0
146

রোজভ্যালি কাণ্ডে এস ভি এফ কর্তা শ্রীকান্ত মোহতা কে গতকাল আর্রেস্ট করেছিল সি বি আই। আজ ভুবনেশ্বর আদালতে পেশ করা হয়। সঙ্গে ছিলেন সি বি আই এর তদন্তকারী অফিসার চোজম শেরপা সহ আরো ৩ সিবিআই অফিসার। প্রথম থেকেই সিবিআই নিজেদের হেফাজতে নিতে চাননি। প্রযোজকের আইনজীবী আদালতে দাবি করেন, সিবিআই-এর হাতে কোনও প্রমাণই নেই। তাই তারা হেফাজতে নিতে চায়নি। পাল্টা সিবিআইয়ের কৌঁসুলি বলেন, শ্রীকান্তের বিরুদ্ধে যা তথ্যপ্রমাণ রয়েছে তা প্রকাশ্যে বলা যাবে না। তাতে তদন্তে প্রভাব পড়বে। আদালত চাইলে সিক্রেট কেস ডায়েরি জমা দিতে পারে সিবিআই। তা দেখলেই পরিষ্কার হয়ে যাবে। এরপর বিকেলে সওয়া পাঁচটা নাগাদ আদালত ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। শ্রীকান্তকে রাখা হবে ভুবনেশ্বর জেলে।

সিবিআই-এর আধিকারিকদের দাবি, রোজভ্যালি কাণ্ডে আগে বেশ কয়েকবার নোটিস পাঠানো হয়েছিল শ্রীকান্তকে। কিন্তু তিনি হাজিরা দেননি। শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতিবার সিবিআই আধিকারিকরাই পৌঁছে যান কসবার অভিজাত শপিংমলের ১৮ তলায় তাঁর অফিসে। সেখানে গোয়েন্দারা পৌঁছনোর পর ঘটে আরএক কাণ্ড। জানা গিয়েছে ভেঙ্কটেশের অফিস থেকে কলকাতা পুলিশের এক বড় কর্তাকে ফোন করা হয়। তাঁর নির্দেশেই পুলিশবাহিনী পৌঁছোয় সেখানে। এরপর সিবিআই আধিকারিকরা পুলিশ দেখে ফোন করেন রাজ্য প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্তাকে। পষ্টাপষ্টি জানিয়ে দেওয়া হয়, এই তদন্ত চলছে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে। পুলিশ যদি বাধা দেয় সেটা ঠিক কাজ হবে না। এরপরই পুলিশকে ফিরে আসতে বলা হয়। বাইরে বেরিয়ে কসবা থানার পুলিশ জানায়, গণ্ডগোলের খবর পেয়ে তাঁরা সেখানে এসেছিলেন। এরপর সেখান থেকে শ্রীকান্তকে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে তুলে নিয়ে আসে সিবিআই। তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

Leave a Reply