BIG BREAKING মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে বিশ্বাস করলেন চাকরিপ্রার্থীরা ,ভাঙলেন অনশন

0
157

নিজস্ব প্রতিনিধি : দীর্ঘ ২৯ দিনের লড়াই আজ শেষ করলেন এস এস সি চাকরি প্রার্থীরা। আজ ২৯ দিন না খেয়ে কলকাতা প্রেসক্লাবের সামনে পড়ে ছিলেন তারা।
পড়তে হয়েছিল হুমকির মুখে ও। পুলিশ দিয়ে গুন্ডা মাস্তান দিয়ে তাদের কে তুলে দেয়ার প্রচেষ্টা ও চলেছিল। কিন্তু কোন কিছুকে তারা তোয়াক্কা না করেই চুপচাপ তাদের আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছিল।
অবশেষে গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনশন মঞ্চে গিয়ে ছাত্র-ছাত্রিদের বলেন যে – আমাকে বিশ্বাস করুন। ইলেকশনের কোড অফ কনডাক্ট চালু হওয়ার ফলে এই সময় আমি আপনাদের জন্য কিছু করতে পারবোনা। পার্থদা যে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছিল সেখানে ছাত্র-ছাত্রীদের তরফ থেকে আরও পাঁচজন যোগ দাও। এবং আগামী জুন মাসেই এই বিষয়টা নিয়ে আমি কথা বলব। দরকার হলে আইন পরিবর্তন করা হবে। এবং স্কুল সার্ভিস কমিশন এর ক্ষেত্রে স্বচ্ছতার মাধ্যমে নিয়োগের প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি।
এর পরেই ছাত্রছাত্রীরা বলেন যে সরকারের তরফ থেকে কোনো লিখিত প্রতিশ্রুতি পেলে তবেই তারা ধরনা প্রত্যাহার করবে।আজ সকালে ছাত্র-ছাত্রীদের একটা টিম বিকাশ ভবনে পৌঁছায়। সেখানে আলাপ-আলোচনার পরে বিকাল চারটায় সাংবাদিক বৈঠক করে পরিষ্কারভাবে ছাত্রছাত্রীরা জানায় যে তারা মুখ্যমন্ত্রীর কথা কে বিশ্বাস করে, জুন পর্যন্ত তাদের আন্দোলন স্থগিত রাখল। ভোট শেষ হওয়ার পরে জুন মাসে যদি তাদের দাবি-দাওয়া নিয়ে পর্যালোচনা করা হয় তাহলে ছাত্রছাত্রীরা আবার এই প্রেসক্লাবের সামনে ধর্নায় বসবেন।
বিগত ২৯ দিন এই ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শঙ্খ ঘোষের মতো ব্যক্তিত্বরা। নানান ধরনের সংগঠন ও এই অনশনকারী ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদেরকে সহমর্মিতা জানিয়েছে। সব দিক থেকে দেখতে গেলে চাকরিপ্রার্থী ছাত্র-ছাত্রীদের নৈতিক জয় হয়েছে ,কেননা ওই ধর্মতলার বুকে সিঙ্গুর আন্দোলন এর সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২৬ দিন অনশন করেছিলেন। চাকরিপ্রার্থী ছাত্রছাত্রীরা ২৯। মুখ্যমন্ত্রীর অনশনের রেকর্ড তারা ভেঙে ফেলেছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর আগেও হস্তক্ষেপ করতে পারতেন কিন্তু তিনি করেননি। অতএব স্নায়ুযুদ্ধে ছাত্র-ছাত্রীদের একপ্রকার জয় হয়েছে বলে ধরে নেয়া হচ্ছে।মমতার কথা কতটা বিশ্বাসযোগ্য এবং জুন মাসে সরকারের তরফ থেকে কতটা পদক্ষেপ গ্রহণ করে সেটাই এখন দেখার।

Leave a Reply