জয়মাল্য দেশমুখ : ভাবছেন এ আবার কি রকম আজব কথা।হ্যাঁ,এটাই সত্যি।এই দৃশ্য দেখতে আর উপভোগ করতে যেতে হবে ভুবনেশ্বর-এর নন্দনকাননে।নন্দনকানন আসলে একটি চিড়িয়াখানা। কিন্তু দেশের আর পাঁচটা চিড়িয়াখানার থেকে এটি একটু আলাদা।এখানে বন্য পশুরা যেমন খাঁচার মধ্যে আছে,তেমনি খাঁচার বাইরে খোলা জঙ্গলেও আছে।

ভুবনেশ্বর শহর থেকে মাত্র ১৬ কিলোমিটার দূরে রয়েছে এই নন্দনকানন।পুরী গেলে অনেকেই নন্দনকানন যান,কিন্তু সেখানে চাইলে আপনি খাঁচা-ঘেরা গাড়িতে বসে বনের বাগ-সিংহ ঘুরে বেড়াচ্ছে,এ দৃশ্য দেখতে পারেন।সাদা বাঘ আর সিংহ-র ‘সাফারি’ করতে পারেন এই নন্দনকাননে।

আপনাকে নিয়ে ছোট একটি বাস সাদা বাঘ এর জন্য নির্দিষ্ট একটা ঘেরা জঙ্গলে ঢুকবে।বাসের সিটে বসে জানলার কাঁচ দিয়ে বাইরে আপনি দেখতে পাবেন বাঘ ঘুরছে।একই দৃশ্যের দেখা মিলবে সিংহ,ভাল্লুকের জন্য নির্দিষ্ট জায়গাতেও।

এছাড়াও এই নন্দনকাননে আপনি পায়ে হেঁটে বা ব্যাটারিচালিত গাড়িতে করেও খাঁচার মধ্যে থাকা পশু-পাখি দের দখতে পারেন।বিস্তির্ন এলাকা জুড়ে প্রাকৃতিক ভাবে ছড়িয়ে থাকা জঙ্গল এলাকায় আপনি দেখতে পাবেন অসংখ্য হরিন,ময়ুর,অন্যান্য পাখি।রয়েছে বিরাট ঝিলে বোটিং-এরও সুযোগ।আপনি খাঁচা করা বাসের মধ্যে থেকে বাইরে ঘুরে বেড়ানো বাঘ-সিংহ দেখতে চাইলে যেতেই হবে উড়িশ্যার নন্দনকানে।

Leave a Reply